অ্যাপল বনাম স্যামসাং!!

অ্যাপল তাদের ওলেড স্ক্রিনের বিকল্প সরবরাহকারী হিসেবে এলজিকে বাছাই করছে এমন গুঞ্জন উঠে চলতি বছরের জুনে। আর সম্প্রতি কোনো সূত্র না উল্লেখ করা প্রকাশ করা ওই খবরে বলা হয়, এলজি ওলেড প্যানেল ইতোমধ্যে গুণগত মান যাচাইয়ে অ্যাপলের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। ২০১৭ সালে অ্যাপলের আইফোন X আনার পর থেকে এখন পর্যন্ত অ্যাপলের একমাত্র ওলেড স্ক্রিন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে স্যামসাং। প্রাথমিক চুক্তিতে অ্যাপলকে প্রায় ১০ কোটি ওলেড ডিসপ্লে সরবরাহের চুক্তি করে স্মার্টফোন জগতে অ্যাপলের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী এই প্রতিষ্ঠানটি।

এতদিন একমাত্র সরবরাহকারী থাকায় এক্ষেত্রে স্যামসাং মূল্য নিয়ন্ত্রণে নিজেদের আধিপত্যের সুযোগ দিয়েছে। এখন এলজিও প্রবেশ করলে স্যামসাংয়ের উপর অ্যাপলের নির্ভরশীলতা কমবে-- এমনটাই ভাষ্য প্রযুক্তি সাইট ভার্জের। অ্যাপল আর এলজি মধ্যে চুক্তি সামনের দিকে আগালে এলজির ওলেড স্ক্রিনগুলো সম্ভবত আইফোন Xএস আইফোন Xএস ম্যাক্স- ব্যবহার করা হবে।
অ্যাপলের নতুন আইফোনকে টেক্কা দিতে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্যামসাং বাজারে আনতে পারেগ্যালাক্সি এস১০নামের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন। নতুন ফোনে বেশ কিছু চমক থাকবে বলে প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন। এস১০ স্মার্টফোনে কী কী ফিচার থাকবে? ধারণা করা হচ্ছে, এস১০ স্মার্টফোনটি ৫জি নেটওয়ার্ক সমর্থন করবে। এর বাইরে থাকবে আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের চেয়ে বড় আকারের ডিসপ্লে ৬টি ক্যামেরা। এস১০ স্মার্টফোনটি চারটি বিশেষ মডেলে বাজারে ছাড়তে পারে স্যামসাং। দশমিক ইঞ্চি মাপের ডিসপ্লেযুক্ত ফোনটির একটি সংস্করণবিয়ন্ড এক্সকোডনেম দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে বলে গুঞ্জন রটেছে। বছর অ্যাপল বাজারে ছেড়েছে তাদের সবচেয়ে দামি ফ্ল্যাগশিপ আইফোনের মডেল। আইফোন এক্সএস ম্যাক্স ৫১২ জিবি মডেলের ফোনটির দাম হাজার ৪৪৯ মার্কিন ডলার বা প্রায় লাখ ২৩ হাজার টাকা। গ্রাহকদের কাছে দশমিক ইঞ্চি ডিসপ্লের আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের চাহিদাই সবচেয়ে বেশি। 

গত ১২ সেপ্টেম্বর অ্যাপল একযোগে নতুন তিনটি আইফোন উন্মোচন করেছে। ডিভাইস তিনটি হচ্ছে আইফোন এক্সএস, আইফোন এক্সএস ম্যাক্স আইফোন এক্সআর। নতুন আইফোনকে টেক্কা দিতেগ্যালাক্সি এস১০তৈরি করছে স্যামসাং। এতে স্যামসাংয়ের এক্সিনোস ৯৮২০ চিপসেট ব্যবহৃত হবে। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্যালাক্সি এস১০ সিরিজে সবচেয়ে বড় ফোনটি বিয়ন্ড এক্স কোডনেম দিয়ে তৈরি হচ্ছে। কোডনেমের অর্থ হচ্ছে এই মডেলের ফোনের ১০ বছর পূর্ণ হচ্ছে। এর আগে অ্যাপল তাদের আইফোনের ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষেআইফোন এক্সউন্মুক্ত করে। নতুন গ্যালাক্সি ফোনে স্যামসাং বড় চমক দেবে ক্যামেরার ক্ষেত্রে। এতে ছয়টি ক্যামেরার মধ্যে পেছনে থাকবে চারটি ক্যামেরা সেটআপ আর সামনে থাকবে দুটি ক্যামেরা সেটআপ। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল বলছে, ভেরিজন, এটিঅ্যান্ডটি, টি-মোবাইলের মতো অপারেটরদের সঙ্গে ৫জি নিয়ে আলোচনা করেছে স্যামসাং। তবে বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত কিছু সিদ্ধান্ত আসেনি। স্যামসাংয়ের পক্ষ থেকে ৫জি সমর্থনকে এস১০ স্মার্টফোনের মূল ফিচার হিসেবে উল্লেখ করা হতে পারে। এদিক থেকে অ্যাপলের চেয়ে এগিয়ে থাকার সুযোগ নিতে চায় দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠানটি। অ্যাপল ২০২০ সাল নাগাদ ৫জি সুবিধার ফোন বাজারে ছাড়ার পরিকল্পনা করছে। ইনটেল তাদের জন্য ৫জি মডেম তৈরিতে কাজ করবে। কিন্তু স্যামসাং আগামী বছরের শুরুতেই ৫জি ফোন বাজারে আনার লক্ষ্যে কাজ করছে। এস১০ মডেলের স্মার্টফোনের পাশাপাশি ভাঁজ করার সুবিধাযুক্ত নতুন স্মার্টফোন আগামী বছরে বাজারে ছাড়া হতে পারে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছে স্যামসাং কর্তৃপক্ষ।অ্যাপল তাদের ওলেড স্ক্রিনের বিকল্প সরবরাহকারী হিসেবে এলজিকে বাছাই করছে এমন গুঞ্জন উঠে চলতি বছরের জুনে। আর সম্প্রতি কোনো সূত্র না উল্লেখ করা প্রকাশ করা ওই খবরে বলা হয়, এলজি ওলেড প্যানেল ইতোমধ্যে গুণগত মান যাচাইয়ে অ্যাপলের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। 

২০১৭ সালে অ্যাপলের আইফোন X আনার পর থেকে এখন পর্যন্ত অ্যাপলের একমাত্র ওলেড স্ক্রিন সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হচ্ছে স্যামসাং। প্রাথমিক চুক্তিতে অ্যাপলকে প্রায় ১০ কোটি ওলেড ডিসপ্লে সরবরাহের চুক্তি করে স্মার্টফোন জগতে অ্যাপলের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী এই প্রতিষ্ঠানটি। এতদিন একমাত্র সরবরাহকারী থাকায় এক্ষেত্রে স্যামসাং মূল্য নিয়ন্ত্রণে নিজেদের আধিপত্যের সুযোগ দিয়েছে। এখন এলজিও প্রবেশ করলে স্যামসাংয়ের উপর অ্যাপলের নির্ভরশীলতা কমবে-- এমনটাই ভাষ্য প্রযুক্তি সাইট ভার্জের। অ্যাপল আর এলজি মধ্যে চুক্তি সামনের দিকে আগালে এলজির ওলেড স্ক্রিনগুলো সম্ভবত আইফোন Xএস আইফোন Xএস ম্যাক্স- ব্যবহার করা হবে।

অ্যাপলের নতুন আইফোনকে টেক্কা দিতে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান স্যামসাং বাজারে আনতে পারেগ্যালাক্সি এস১০নামের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন। নতুন ফোনে বেশ কিছু চমক থাকবে বলে প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন। এস১০ স্মার্টফোনে কী কী ফিচার থাকবে

ধারণা করা হচ্ছে, এস১০ স্মার্টফোনটি ৫জি নেটওয়ার্ক সমর্থন করবে। এর বাইরে থাকবে আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের চেয়ে বড় আকারের ডিসপ্লে ৬টি ক্যামেরা। এস১০ স্মার্টফোনটি চারটি বিশেষ মডেলে বাজারে ছাড়তে পারে স্যামসাং। দশমিক ইঞ্চি মাপের ডিসপ্লেযুক্ত ফোনটির একটি সংস্করণবিয়ন্ড এক্সকোডনেম দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে বলে গুঞ্জন রটেছে। বছর অ্যাপল বাজারে ছেড়েছে তাদের সবচেয়ে দামি ফ্ল্যাগশিপ আইফোনের মডেল। আইফোন এক্সএস ম্যাক্স ৫১২ জিবি মডেলের ফোনটির দাম হাজার ৪৪৯ মার্কিন ডলার বা প্রায় লাখ ২৩ হাজার টাকা। গ্রাহকদের কাছে দশমিক ইঞ্চি ডিসপ্লের আইফোন এক্সএস ম্যাক্সের চাহিদাই সবচেয়ে বেশি। গত ১২ সেপ্টেম্বর অ্যাপল একযোগে নতুন তিনটি আইফোন উন্মোচন করেছে। ডিভাইস তিনটি হচ্ছে আইফোন এক্সএস, আইফোন এক্সএস ম্যাক্স আইফোন এক্সআর। নতুন আইফোনকে টেক্কা দিতেগ্যালাক্সি এস১০তৈরি করছে স্যামসাং। এতে স্যামসাংয়ের এক্সিনোস ৯৮২০ চিপসেট ব্যবহৃত হবে। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্যালাক্সি এস১০ সিরিজে সবচেয়ে বড় ফোনটি বিয়ন্ড এক্স কোডনেম দিয়ে তৈরি হচ্ছে। কোডনেমের অর্থ হচ্ছে এই মডেলের ফোনের ১০ বছর পূর্ণ হচ্ছে। এর আগে অ্যাপল তাদের আইফোনের ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষেআইফোন এক্সউন্মুক্ত করে। নতুন গ্যালাক্সি ফোনে স্যামসাং বড় চমক দেবে ক্যামেরার ক্ষেত্রে। এতে ছয়টি ক্যামেরার মধ্যে পেছনে থাকবে চারটি ক্যামেরা সেটআপ আর সামনে থাকবে দুটি ক্যামেরা সেটআপ। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল বলছে, ভেরিজন, এটিঅ্যান্ডটি, টি-মোবাইলের মতো অপারেটরদের সঙ্গে ৫জি নিয়ে আলোচনা করেছে স্যামসাং। 

তবে বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত কিছু সিদ্ধান্ত আসেনি। স্যামসাংয়ের পক্ষ থেকে ৫জি সমর্থনকে এস১০ স্মার্টফোনের মূল ফিচার হিসেবে উল্লেখ করা হতে পারে। এদিক থেকে অ্যাপলের চেয়ে এগিয়ে থাকার সুযোগ নিতে চায় দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠানটি। অ্যাপল ২০২০ সাল নাগাদ ৫জি সুবিধার ফোন বাজারে ছাড়ার পরিকল্পনা করছে। ইনটেল তাদের জন্য ৫জি মডেম তৈরিতে কাজ করবে। কিন্তু স্যামসাং আগামী বছরের শুরুতেই ৫জি ফোন বাজারে আনার লক্ষ্যে কাজ করছে। এস১০ মডেলের স্মার্টফোনের পাশাপাশি ভাঁজ করার সুবিধাযুক্ত নতুন স্মার্টফোন আগামী বছরে বাজারে ছাড়া হতে পারে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছে স্যামসাং কর্তৃপক্ষ।

Share this:

 
Copyright © Geek Bangladesh. Designed by OddThemes