মহা বিপাকে সৌদি যুবরাজ!!

সম্প্রতি বিবিসির কাছে দেয়া এক মন্তব্যে সৌদির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদেল আল-জুবেইর আলোচিত সাংবাদিক জামাল খাসোগির হত্যাকাণ্ডকে উদ্দেশ্য করে সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে অপসারণের আহ্বানকেরেড লাইনআখ্যা দিয়েছেন

বিগত অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরে খাসোগিকে নজিরবিহীন ভাবে হত্যা করা হয়। এই খুনের নির্দেশ যুবরাজ সালমান দিয়েছেন বলে কথিত রয়েছে। কারণ, ঘটনার সাথে সম্পর্কিত অনেকেই সৌদি পরিবারের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত ছিল এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএও একই কথা বলেছে। ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে সৌদির সাথে প্রভাবশালী অনেক দেশের সম্পর্কের অবনতি হয়েছে
যদিও এত অভিযোগের পরেও খাসোগি হত্যায় যুবরাজ সালমানের সম্পৃক্ততার অভিযোগ সরাসরি নাকচ করে আসছে সৌদি আরব। তারই ধারাবাহিকতায় দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদেল আল-জুবেইর বিবিসির কাছে একই দাবি করেছেন। তার মতে সৌদি যুবরাজ কোনভাবেই এই ঘটনার সাথে সম্পর্কিত নন

বিবিসি অনলাইনের সঙ্গে আলাপে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাবী করে বলেন, সৌদি আরবে আমাদের নেতৃত্ব হলো একটি শেষ সীমা (রেড লাইন) দুটি পবিত্র মসজিদের জিম্মাদার (বাদশা সালমান) যুবরাজ (মোহাম্মদ বিন সালমান) হলেন শেষ সীমা (রেড লাইন) তাঁরা প্রত্যেক সৌদি নাগরিকের প্রতিনিধিত্ব করেন। প্রত্যেক সৌদি নাগরিক তাঁদের প্রতিনিধিত্ব করেন। বাদশা বা যুবরাজের প্রতি অপমানজনক কোনো আলোচনাই সৌদি আরব সহ্য করবে না।

আবদেল আল-জুবেইর আরও বলেন, আমরা একদম পরিষ্কারভাবে বলেছি যে এই হত্যায় যুবরাজ জড়িত নন। হত্যাকাণ্ড নিয়ে তদন্ত চলমান রয়েছে। অবশ্যই জড়িতদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে
এদিকে শুরু থেকেই খাসোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে বিপাকে আছে সৌদি আরব। সৌদি বাদশা যুবরাজের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ছে। যুবরাজকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি উঠেছে সব মহল থেকে। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সৌদি বিরোধী চক্রও তৎপর রয়েছে সৌদি রাজপরিবারের ভেতর থেকেই যুবরাজ বিরোধি মনোভাবের সম্মুখীন হচ্ছেন বলে খবর বেরিয়েছে।
এত বাঁধা বিপত্তিকে উপেক্ষা করেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সৌদি আরবের পাশেই আছেন। খাসোগি হত্যাকাণ্ডে সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতার অভিযোগ থাকলেও দেশটির সঙ্গে সুসম্পর্ক চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে ট্রাম্প। তিনি সরাসরি জানিয়েছেন, সিআইএর সিদ্ধান্ত সত্ত্বেও তিনি যুবরাজ বা সৌদি সরকারের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেবেন না।


ট্রাম্পের এই অবস্থানের বিরোধিতা করেছে রিপাবলিকান ডেমোক্র্যাট উভয় শিবির। মার্কিন কংগ্রেস পুরো ঘটনার আলোকে সৌদি যুবরাজের জড়িত থাকার বিষয়টি খতিয়ে দেখার দাবী করেছে

Share this:

 
Copyright © Geek Bangladesh. Designed by OddThemes